ইংরেজিতে অনর্গল কথা বলতে পারলে কার না ভালো লাগে কিন্তু কথা বলতে গেলে এক ধরনের জড়তা কাজ করে। কয়দিন চেষ্টা করার পর আর আগ্রহ থাকে না ইংরেজিতে কথা বলার। আসলে আমরা জানি না কিভাবে ইংরেজিতে কথা বলা শেখাটাকে আনন্দময় করব কিংবা কিভাবে লম্বা সময় লেগে থাকার মানসিকতা তৈরি করব। ইংরেজিতে স্পিকিং স্কিল বাড়ানোর জন্য সবচেয়ে ভালো উপায় হল ইংরেজিতে কথা বলা প্রাকটিস করা। কিছু সহজ বিষয় মাথায় রাখলেই কিন্তু আমরা ইংরেজিতে স্পিকিং স্কিল বাড়াতে পারব। চলুন তাহলে জেনে নেই ইংরেজিতে স্পিকিং স্কিল কিভাবে বাড়াবেন ? আর্টিকেলটি পড়ে আমরা কিভাবে ইংরেজিতে স্পিকিং স্কিল বাড়াবো।

কথা বলা চিন্তাটা ইংরেজিতে করতে হবেঃ

আমরা যখন কথা বলি তখন আগে কি বলবো তা বাংলায় ভেবে নেই। তারপর মনে মনে অনুবাদ করে ইংরেজিতে বলা শুরু করি। এর জন্য আমরা কথা বলতে গিয়ে বারবার আটকে যাই ফলশ্রুতিতে কথায় ফ্লুয়েন্সি থাকে না। তাই কথা বলার চিন্তাটা ইংরেজিতে করতে হবে। শুধুমাত্র কথা বলার সময় না, যেকোনো সময়ই এবং যখনই আমরা কথা বলতে যাব কিংবা কোন কিছু চিন্তা করব সেই চিন্তা ও যাতে ইংরেজিতে হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। তবেই ইংরেজিতে স্পিকিং স্কিল বাড়বে।

অন্ধের মত ভোকাবুলারি মুখস্ত না করাঃ

অনেকেরই ধারনা যদি ভোকাবুলারি মুখস্ত করা যায় তাহলে স্পিকিং স্কিলটা সহজে আয়ত্তে আনা যাবে। কিন্তু বাস্তবে আমরা নিজেও জানি অন্ধের মত ভোকাবুলারি মুখস্ত করে কেউ বেশিদিন মনে রাখতে পারেনি। তাই ভোকাবুলারি মুখস্থ না করে ভোকাবুলারি শিখে প্রতিদিনের কথাবার্তায় নিয়ে প্র্যাকটিস করতে হবে তবেই ভোকাবুলারি মনে থাকবে এবং স্পিকিং স্কিল বাড়াতে সাহায্য করবে।

একা একা কথা বলার অভ্যাসঃ

যদি ইংরেজিতে চিন্তা করার অভ্যাস রপ্ত হয়ে যায় তাহলে একা একা ইংরেজিতে কথা বলার অভ্যাস তৈরি করে ফেলুন। মনে মনে কোন একটা বিষয় নিয়ে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে জোরে জোরে কথা বলুন তাহলে ভুল হলে নিজেই শুধরে নিতে পারবেন। প্রত্যেকদিন যদি দশ মিনিট আপনি একা একা কথা বলার অভ্যাস করেন তাহলে বিশ্বাস করুন আপনার স্পিকিং স্কিল না বেড়ে স্থির থাকার উপায় থাকবে না।

গ্রামার নিয়ে বেশি চিন্তা না করাঃ

ইংরেজিতে কথা বলার জন্য সবচেয়ে বেশি সমস্যা হয় গ্রামার নিয়ে। গ্রামার নিয়ে এমনিতে কোন সমস্যা নেই লিখতে গেলে নির্ভুলভাবে লিখে যেতে পারছেন কিন্তু কথা বলতে গেলেই গ্রামার ভুল হয়ে যায়। এ কারণেই, ইংরেজিতে কথা বলার সময় গ্রামার নিয়ে বেশি চিন্তা না করাই ভালো। ভুল হলেও কথা থামানোর দরকার নেই। প্র্যাকটিস করতে করতেই ভুল ঠিক হয়ে যাবে।

প্রচুর ইংরেজি শোনাঃ

ইংরেজি বই পড়ার থেকে ইংরেজি শোনার গুরুত্ব অনেক বেশি স্পিকিং স্কিল বাড়ানোর জন্য। কিছু কিছু ইংরেজি শব্দ এমন থাকে যেগুলোর বাংলা করলে কিছুই বোঝা যাবে না। সেগুলো যত না শব্দ বা বাক্য তার চেয়েও বেশি এক্সপ্রেশন। ইংরেজিতে কথা বলার সময় এক্সপ্রেশন গুলোর ব্যবহার আমাদের কথাকে আরো শ্রুতিমধুর করে তোলে। ইংরেজিতে নিউজ শোনা এবং ইংরেজিতে গান শোনাও স্পিকিং স্কিল বাড়াতে সাহায্য করে।

ইংরেজিতে মুভি দেখাঃ

যারা ইংরেজিতে স্পিকিং স্কিল বাড়াতে চায় তাদের জন্য সবচেয়ে আনন্দদায়ক মাধ্যম হলো ইংরেজিতে মুভি দেখা। মুভি দেখার সময় নিচে সাবটাইটেল গুলো পড়লে স্পিকিং স্কিল বেড়ে যাবে। আপনি যদি একই মুভি বার বার দেখেন তাহলে সাবটাইটেল গুলো মোটামুটি আপনার মুখস্ত হয়ে যাবে এবং দৈনন্দিন কাজে সেগুলো ব্যবহার করতে পারবেন। তাই স্পিকিং স্কিল বাড়াতে চাইলে ইংরেজি মুভি কিংবা সিরিজ দেখা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

ইংরেজিতে গল্প বলাঃ

আপনি যদি গল্প বলতে ভালোবাসেন তাহলে সেই গল্পগুলো ইংরেজিতে বলার অভ্যাস করুন। এটা নিজেকে পরীক্ষা করার খুব ভালো একটা উপায়। যে গল্পটা আমরা খুব ভালো জানি তা বলতে গেলে আমাদের খুব একটা ভাবতে হয় না। অনর্গল বলে যেতে পারি। সেই গল্পটা ইংরেজিতে আমরা ঠিক কতটা ভালোভাবে বলতে পারছি সেটা বুঝলে নিজের অবস্থা সম্পর্কে খুব একটা ভাল ধারণা হয়ে যাবে। যদি নাও বলতে পারি অল্প অল্প করে বলার প্রাকটিস করলে আশা রাখি স্পিকিং স্কিল বাড়ানো সম্ভব হবে।

সিনোনিম জানাঃ

যেকোনো শব্দের বেশ কিছু সিনোনিম থাকে আবার একই শব্দের অনেক রকম ব্যবহার হতে পারে। খুব সহজ কোন একটা উদাহরণ দেওয়া যাক। যেমন – Happy এর আরো কিছু সিনোনিম রয়েছে যেমন- Cheerful, glad joyful ইত্যাদি। এগুলো জানতে হবে তাহলে কথা বলার সময় এগুলোর ব্যবহার করলে আপনার বাক্য সুন্দর হয়ে উঠবে।

Phrase বা Expression শেখাঃ

ইংরেজি যাদের ফাস্ট ল্যাঙ্গুয়েজ তাদের সাথে অন্যদের পার্থক্য শুধু অনর্গল কথা বলায় না বরং শব্দচয়ন এবং কথার ধরনেও। একদম সঠিক গ্রামার আর ভোকাবুলারি ব্যবহার করে কথা বললেও দেখা যায় একজন নেটিভ স্পিকারের সাথে কিছুটা পার্থক্য থেকেই যায়। যেমন আমরা হয়তো কেউ কেমন আছে জানতে চাইলে বলি হাউ আর ইউ? সেই একই কথা একজন নেটিভ স্পিকার বললে বলে হোয়াটস অ্যাপ? তাই, শব্দ শেখার চেয়েও বেশি উপকারী হচ্ছে Phrase বা Expression শেখা।

ইংরেজি অ্যাপ ব্যবহার করাঃ

ইংরেজিতে স্পিকিং স্কিল বাড়ানোর জন্য স্মার্টফোনের অ্যাপকে কাজে লাগানো বুদ্ধিমানের কাজ। এর সাহায্যে আপনার স্পিকিং স্কিল শুধু বাড়বে তা নয় আপনার ইংরেজি উচ্চারণ গুলো খুব চমৎকার হয়ে যাবে। সব সময় ইংরেজিতে কথা বলার জন্য পার্টনার পাওয়া খুব মুশকিল তাই আপনার ফোনের অ্যাপই হবে আপনার সব সময়ের কথা বলার সঙ্গী। ইংরেজিতে স্পিকিং স্কিল বাড়ানোর জন্য এমন কিছু অ্যাপের নাম দেয়া হলো। যেমন –

  • FluntU
  • Speaking Pal
  • English Talk
  • Speaklar
  • VoA Learning English
  • Talk English
  • Supiki

সব শেষের কথাটি না বললেই নয় ইংরেজিতে স্পিকিং স্কিল বাড়ানোর জন্য আমাদের সংকোচ কাটিয়ে উঠতে হবে। সংকোচ এরকম যে, যদি ভুল হয় তাহলে যার সামনে কথা বলব সে কি মনে করবে। আমাদের কোনো ভুল কেউ ধরিয়ে দিক তা আসলে আমরা স্বাভাবিকভাবে মেনে নিতে পারে না। এই কারণেই স্পিকিং স্কিল থেকে পিছিয়ে পড়ি ।তাই বলবো সংকোচ নয়, প্রয়োজনে ধীরে ধীরে বলার প্রাক্টিস করব। ভুল হলেও থামবো না, বলতে আমাদের হবেই।