পড়াশোনা শেষ করে সুন্দর ক্যারিয়ার গড়ার স্বপ্ন সবারই থাকে। আমাদের চারপাশে ক্যারিয়ার হিসেবে অনেক পেশা রয়েছে। একটি পেশা বেছে নিতে প্রয়োজন হয় সঠিক ক্যারিয়ার পরিকল্পনা। আর একটি সঠিক সিদ্ধান্ত গড়ে দিতে পারে একটি সফল ক্যারিয়ার। বাংলাদেশ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত দেশ। এদেশে অনেক জায়গা রয়েছে যেগুলোকে ঘিরে গড়ে উঠেছে পর্যটন সেক্টর। এই পর্যটন সেক্টরকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে অনেক নামি দামি পাঁচ তারকা হোটেল এবং রিসোর্ট। এগুলোকে ঘিরে বাড়ছে দক্ষ কর্মী ও ব্যবস্থাপকের চাহিদা। শুধু দেশে নয় দেশের বাহিরেও রয়েছে লোভনীয় চাকরির হাতছানি। এতক্ষণে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন কোন পেশা নিয়ে কথা বলা হচ্ছে। আজকের আর্টিকেলে রয়েছে হোটেল ম্যানেজমেন্ট এ ক্যারিয়ার সম্ভাবনা নিয়ে আদ্যোপান্ত। এ বিষয়ে পড়াশোনা করতে হলে এইচএসসি পাশের পর ভর্তি হতে পারেন ব্যাচেলর ইন আর্টস ইন ট্যুরিজম এন্ড হোটেল ম্যানেজমেন্ট।

এখনকার পাঁচতারকা হোটেলগুলো যেন একটা ছোটখাটো শহর। কি নেই এসব হোটেলে পুরো শহরে যেসব জিনিস থাকে এসব হোটেলেও ঠিক সেসব আছে। তাই এসব হোটেল চালাতে গেলে প্রয়োজন হয় পেশাদার কর্মীর। কারণ একটি আধুনিক পাঁচতারকা হোটেলে বেশ কিছু বিভাগ থাকে। যেমন ফুড এন্ড বেভারেজ, হাউস কিপিং, পাবলিক রিলেশ্‌ন, মার্কেটিং, ফিনান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট, হোটেল ফ্রন্ট অফিস ম্যানেজমেন্ট ইত্যাদি। এগুলোর প্রত্যেকটি জায়গায় রয়েছে হোটেল ম্যানেজমেন্টে পাস করা শিক্ষার্থীদের চাহিদা। তাই আসুন কথা না বাড়িয়ে জেনে নেই হোটেল ম্যানেজমেন্টে ক্যারিয়ার সম্ভাবনা।

হোটেল ম্যানেজমেন্টে ক্যারিয়ার সম্ভাবনা – কাজের ক্ষেত্র

হোটেল ম্যানেজমেন্টে যেসব বিষয়ে পড়ানো হয় সেসব বিষয়ে পড়ার পর শুধু হোটেলেই চাকরি হয় তেমন নয়।হোটেল ছাড়াও পেতে পারেন বিভিন্ন এয়ারলাইন্স কোম্পানি, ট্যুর কোম্পানি ও ট্রাভেল এজেন্সিতে চাকরির সুযোগ। আর প্রশিক্ষণ নেয়ার পর দেশের বাহিরে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে। বিভিন্ন দেশে চাকরির সুযোগ রয়েছে যেমন যুক্তরাজ্য, কানাডা, সিঙ্গাপুর, নিউজিল্যান্ড, সাইপ্রাস, দুবাই এবং মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে।

কোথায় নিতে পারেন হোটেল ম্যানেজমেন্টে পড়াশুনাও প্রশিক্ষণ?

চার বছর মেয়াদি অনার্স কোর্সের জন্য সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় অন্যতম। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে এ বিষয়ে পড়ানো হয় দি পিপলস ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, ইবাইস ইউনিভার্সিটি এবং ভিক্টোরিয়া ইউনিভার্সিটি সহ অল্প কয়েক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে। এছাড়া ডিপ্লোমা কোর্সের জন্য যেতে পারেন-

  • ন্যাশনাল হোটেল এন্ড ট্যুরিজম ট্রেনিং ইনস্টিটিউট
  • বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন, মহাখালি, ঢাকা
  • পুূর্বানি ইন্টারন্যাশনাল হোটেল এন্ড ট্যুরিজম ম্যানেজমেন্ট, দিলকুশা,মতিঝিল, ঢাকা
  • বাংলাদেশ হোটেল এন্ড ট্যুরিজম ট্রেনিং ইনস্টিটিউট, গ্রীন রোড, ঢাকা
  • হোটেল রাজমনি ঈসাখাঁ, কাকরাইল, ঢাকা

এছাড়া আরো অনেক জায়গায় হোটেল ম্যানেজমেন্টে পড়াশুনা করা ও প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এসব জায়গায় পড়াশোনা করে এবং প্রশিক্ষণ নিয়ে আপনিও পেতে পারেন এমন সুন্দর কারিয়ার।

হোটেল ম্যানেজমেন্টে ক্যারিয়ার সম্ভবনাঃ যেসব বিষয়ের চাহিদা রয়েছে

হোটেল মানেজমেন্ট শুধু একটা বিষয় নয়। এর মধ্যে বেশ কিছু বিষয় রয়েছে। এসব বিষয়ে ছয় মাসের এবং এক বছর, দুই বছর কিংবা তিন বছরের ডিপ্লোমা কোর্স রয়েছে। আর স্নাতক কোর্স তো আছেই। চাহিদামতো যে কোন একটি কোর্স করতে পারেন। চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে বেশি গ্রহণযোগ্য দীর্ঘমেয়াদী কোর্সগুলোর। চাকরির ক্ষেত্রে চাহিদা বেশি এমন ছয়টি বিষয়ের বিস্তারিত তুলে ধরা হলো-

  • ফুড এন্ড বেভারেজ সার্ভিস – খাবার তৈরি, টেবিল সাজানো, খাদ্য ও পানীয় পরিবেশন, পানিয় ও খাদ্য তালিকা,হাইজিন অ্যান্ড স্যানিটেশন ইত্যাদি বিষয় এই কোর্সের অন্তর্গত।
  • ফুড এন্ড বেভারেজ প্রোডাসন – এই কোর্সেরঅন্তর্ভুক্ত বিষয়গুলো হলো বাংলাদেশি, চাইনিজ, ইউরোপিয়ান, ইন্ডিয়ান খাবার তৈরি প্রণালী, ডেকোরেশন ইত্যাদি।
  • ফ্রন্ট অফিস সেক্রেটারিয়াল অপারেশন – অভর্থনা টেলিফোন ম্যানারস, চেক ইন, চেক আউট, বিল সংরক্ষন, হিসাব সংরক্ষণ, রেকর্ড সংরক্ষণ ও কম্পিউটার সংক্রান্ত বিষয়গুলি শিখবেন এ কোর্সে।
  • সার্টিফিকেট কোর্স ইন হাউসকিপিং এন্ড লন্ড্রি – কক্ষ সজ্জা, বেড তৈরি, ক্লিনিং,লন্ড্রি সার্ভিস, হাইজিন এন্ড স্যানিটেশন, ফার্স্ট এইড ইত্যাদি এ কোর্সের অন্তর্ভুক্ত।
  • বেকারি এন্ড পেস্ট্রি প্রোডাকশন – এই কোর্সের শিখবেন কেক, ব্রেড, কুকিজ, পেস্ট্রি থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের ডেজার্ট আইটেম প্রস্তুত এবং ডেকোরেশনের মত বিষয়গুলো।
  • ট্রাভেল এজেন্সি অ্যান্ড ট্যুর অপারেশন – এয়ারলাইনস, ট্রাভেল এজেন্সি ও ট্যুর অপারেটর প্রতিষ্ঠান পরিচালনার জন্য এখানে শিখবেন অপারেটর এন্ড ট্যুর গাইডিং, ট্রাভেল সার্ভিস, ট্রাভেল ও কালচারাল জিওগ্রাফি বিষয়গুলো।

হোটেল ম্যানেজমেন্ট এ ভর্তির যোগ্যতাঃ

হোটেল ম্যানেজমেন্ট পড়াশোনা করতে চাইলে আপনাকে এইচএসসির পরই ভর্তি হতে হবে।যদি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশোনা করতে চান তাহলে “ গ ” ইউনিটের অধীনে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। কারণ এটি গ ইউনিটে অর্থাৎ ব্যবসায় প্রশাসনের অধীনে পড়ানো হয়। আর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও ডিপ্লোমা কোর্সের জন্য কোন বিভাগের প্রয়োজন হয় না। যে কোন বিভাগের শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারে।

হোটেল ম্যানেজমেন্ট এ পড়াশোনার খরচঃ

সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পড়াশোনার খরচ অনেক কম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রধান প্রফেসর মুজিব উদ্দিন আহমেদ জানান যে, এখানে চার বছরে হোটেল ম্যানেজমেন্ট এ পড়াশোনার জন্য খরচ পড়বে ৬০ হাজার থেকে ৭০ হাজার টাকার মতো। আর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে প্রতিষ্ঠানভেদে খরচ পড়বে ৪ থেকে ৬ লাখ টাকার মতো। এছাড়া ২ বছর অথবা ৩ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা কোর্সের জন্য প্রতিষ্ঠানভেদে পড়াশোনার খরচ হবে ৮০ হাজার থেকে দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত।

বিদেশে পড়াশোনা ও ক্যারিয়ার সম্ভাবনা যেমন হয়ঃ

হোটেল ম্যানেজমেন্ট এ বিদেশে পড়াশোনা এবং ক্যারিয়ার সম্ভাবনা ব্যাপক। ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, সুইজারল্যান্ড, ভারত, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, পোল্যান্ড, সাইপ্রাস সহ বিভিন্ন দেশে ট্রাভেল এন্ড ট্যুরিজম এ পড়াশোনা সহ গ্রাজুয়েশন করার প্রচুর সুযোগ রয়েছে। কারণ এগুলো দেশে পর্যটন শিল্পের উপর নির্ভর করে গড়ে উঠেছে প্রচুর হোটেল, রেস্টুরেন্ট, রিসোর্ট, ট্যুর কোম্পানিও ট্রাভেল এজেন্সি। এসব দেশে এখনো দক্ষ পেশাজীবীর প্রচুর চাহিদা। এসবদেশে পড়াশোনা ও প্রশিক্ষণের সবচেয়ে বড় সুবিধা হল শিক্ষার পাশাপাশি ট্রাভেল এন্ড ট্যুরিজম এ কাজ করার অফুরন্ত সুযোগ। তাই এসব দেশে বাংলাদেশ থেকে প্রচুর শিক্ষার্থী যাচ্ছে। আপনিও চাইলে প্রয়োজনীয় শর্ত পূরণ করে যেতে পারেন এসব দেশে। আমাদের স্বপ্নের বাংলাদেশ ট্যুরিজম এন্ড হোটেল ম্যানেজমেন্ট ক্যারিয়ার দিনদিন বাড়ছে। তাই আমাদের এই শিল্পকে এগিয়ে নিতে পড়াশোনা করে আপনিও পারেন অবদান রাখতে।

মাসিক আয় যেমন হয়ঃ

হোটেল ম্যানেজমেন্ট এ পড়াশুনা করে আয় কেমন হবে এটা নিয়ে সবার মনেই প্রশ্ন থাকতে পারে। শুরুতে তাই বলা প্রয়োজন যে, প্রতিষ্ঠান ও কাজ ভেদে বেতন কাঠামো ভিন্ন হয়। যারা ডিপ্লোমা কোর্স করতে চান তাদের কোর্স শেষে শিক্ষানবিস হিসেবে কাজ শুরু করতে হবে। এ সময় যাতায়াত বাবদ কিছু টাকা দেয়া হয় কিন্তু সব হোটেলে একই নিয়ম নয়। শিক্ষানবিস শেষে শুরুতে বেতন ১২ থেকে ১৫ হাজার টাকা হয়ে থাকে। পর্যায়ক্রমে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন দের বেতন ৩৫ হাজার থেকে দেড় লাখ পর্যন্ত হয়। বর্তমানে হোটেল ম্যানেজমেন্ট এ পড়াশোনা করে এবং কর্মক্ষেত্রের ব্যাপক চাহিদা থাকায় এই বিষয়ের প্রতি শিক্ষার্থীদের আগ্রহ দিন দিন বাড়ছে। এখানে রয়েছে আকর্ষণীয় বেতন এবং অন্যান্য সুযোগ সুবিধা।

সবশেষে, বাংলাদেশে হোটেল ম্যানেজমেন্টে ক্যারিয়ার সম্ভাবনা দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। ফলে পর্যটন শিল্পকে এগিয়ে নিতে এবং বিদেশে বাংলাদেশকে উপস্থাপন করতে হোটেল ম্যানেজমেন্টে ক্যারিয়ার গড়ার বিকল্প নেই। এই বিষয়ে পড়াশোনা করে যে কেউ অল্প সময়ের মধ্যেই তার ক্যারিয়ারকে উন্নতির চূড়ায় নিয়ে যেতে পারবেন। সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে সঠিক ক্যারিয়ার গড়ার অপার সম্ভাবনা রয়েছে হোটেল ম্যানেজমেন্টে।