চাকরির ইন্টারভিউ

চাকরির ইন্টারভিউতে কিভাবে এগিয়ে থাকবেন

চাকরি ক্ষেত্রে ইন্টারভিউ বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যে কোনো চাকরিতে আগ্রহী হোন না কেন ইন্টারভিউ এ আপনাকে অবশ্যই অংশগ্রহণ করতে হবে। কারন নিয়োগকর্তারা আপনার মুখ দেখি আপনাকে নির্বাচন করবে না অবশ্যই। আর আপনি যতই স্মার্ট আর সুযোগ্য প্রার্থী হন না কেনচাকরি ইন্টারভিউ তে যেতে হলে আপনাকে প্রস্তুতি নিতেই হবে। ইন্টারভিউ একটা যুদ্ধক্ষেত্রের মত এখানে নিজের সম্পর্কে খুব ভালো ধারণা দিতে হয়। যেহেতু পেশাগত বিষয়ে আপনার আগ্রহ ও দক্ষতা দেখার জন্য যেমন একটি ইন্টারভিউ নেয়া হয়, তেমনি আপনার সম্পর্কে অন্য বিষয়গুলো জেনে নেওয়ার জন্য ইন্টারভিউ নেয়া হয়। বড় কোম্পানি নিয়োগকর্তারা মনে করেন যে কোন চাকরির ক্ষেত্রে ইন্টারভিউ বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা নির্ভর করে ইন্টারভিউতে আপনি কতটা ভাল করেন তার ওপর। আজকের আর্টিকেলে চাকরির ইন্টারভিউতে কীভাবে এগিয়ে থাকবেন অন্য সবার চেয়ে সে বিষয়ে কিছু কৌশল শেয়ার করব। আশা করি আপনাদের উপকারে আসবে। চলুন তাহলে শুরু করা যাক।

চাকরির ইন্টারভিউ এর জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ঃ

ইন্টারভিউ দেয়ার আগে আপনাকে কিছু পূর্ব প্রস্তুতি নেয়া প্রয়োজন। যেমন

  • আপনি কোন প্রতিষ্ঠানে ইন্টারভিউ দিতে যাচ্ছেন
  • প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম কি ধরনের
  • আপনার পদমর্যাদা কি হবে
  • আপনাকে কি কি দায়িত্ব পালন করতে হবে
  • কোন স্থানে কাজ করতে হবে বিভাগ না জেলায়
  • এই পদে ভবিষ্যতে পদোন্নতির সম্ভাবনা কতটুকু
  • কতখানি কাজের চাপ নিতে হবে ইত্যাদি।

চাকরির ইন্টারভিউতে এগিয়ে থাকার কিছু উপায় নিচে দেয়া হলঃ

প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে ধারণা নিনঃ

চাকরির ইন্টারভিউ এর জন্য প্রথম প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে ধারণা নেওয়া জরুরী একটি বিষয়। তারপর কারা আপনার ইন্টারভিউ নিবেন, সম্ভব হলে তাদের সম্পর্কেও জানা প্রয়োজন। প্রতিষ্ঠানটি কি নিয়ে কাজ করে, এর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য কি, বছরে কেমন অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে থা্কে, প্রতিষ্ঠানটির মূল প্রতিযোগী কারা এসব বিষয়ে জানুন। এগুলো সম্পর্কে জানতে হলে আপনাকে প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে গিয়ে দেখে দিতে হবে। নিয়োগকর্তাদের নাম জেনে নিন। ইন্টারভিউ শেষে যদি আপনাকে প্রশ্ন করার সুযোগ দেয় তাহলে এমন ভাবে প্রশ্ন করুন যাতে নিয়োগকর্তারা বুঝতে পারে ওই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে আপনার ধারণা কি রকম।
কমন ইন্টারভিউ প্রশ্ন উত্তর ভালোভাবে জেনে যাবেনঃ

কমন ইন্টারভিউ প্রশ্ন উত্তর গুগলে খুব সহজেই পাওয়া যায়। আপনার পছন্দমত বাছাই করে একটা লিস্ট করে ফেলুন। তারপর উত্তর গুলো সুন্দর ভাবে অনুশীলন করুন। অনেকে ভাবেন সহজ উত্তর যেকোনো সময় প্রস্তুতি ছাড়াই দেয়া যাবে। কিন্তু উত্তর গুছিয়ে বলা প্রাকটিস করলে যে কোনো নার্ভাস অবস্থায় ও আপনি বলতে পারবেন তাই এই বিষয়টির দিকে খেয়াল রাখা প্রয়োজন।

পেশাগত আচরণ করুনঃ

ইন্টারভিউ রুমে ঢুকে প্রথমে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে ইন্টারভিউ যারা নিবেন তাদের সালাম দিবেন। তাদের চোখে চোখ রাখুন তারপর ভদ্রভাবে আত্মবিশ্বাস নিয়ে ভিতরে ঢোকার পারমিশন গ্রহণ করুন। এভাবে পেশাগত আচরণ করুন এবং এভাবে ইন্টারভিউ একটা দারুণ সূচনা তৈরি করুন।

পোশাকের দিকে খেয়াল রাখুনঃ

ইন্টারভিউ এ পোশাকের ব্যাপারটা বেশ গুরুত্বপূর্ণ একজন চাকরি প্রার্থীর কাছে। আপনাকে অবশ্যই মার্জিত পোশাক পড়তে হবে। আপনার মাঝে পেশাদার ও দক্ষতার ছাপ থাকা জরুরি। যে প্রতিষ্ঠানে যে পদের জন্য আবেদন করেছেন তার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে মার্জিত পোশাক পরা উচিত। সম্ভব হলে ইন্টারভিউ এর আগে প্রতিষ্ঠানের ড্রেসকোড সম্পর্কে জেনে নিতে পারেন।

দৃষ্টি বিনিময়ের দিকে খেয়াল রাখুনঃ

ইন্টারভিউ বোর্ডে গিয়ে আপনার অবশ্যই উপযুক্ত মাত্রায় দৃষ্টি বিনিময় বা চোখ সংযোগ করতে হবে। এটা করতে ব্যর্থ হলে ইন্টারভিউয়ার ভাববেন আপনি হয়তো প্রশ্নের জবাব দিতে ব্যর্থ অথবা প্রতারণা করছেন। অনেকেই প্রশ্নকর্তার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলেন না। এটাই চাকরিপ্রার্থীর বড় ভুল হিসেবে বিবেচিত হয়। এ কথাটা বলার অর্থ হলো অধিকাংশ চাকরিদাতারাই মনে করেন চাকরিপ্রার্থীদের সবচেয়ে বড় ভুল হল চোখের দিকে না তাকিয়ে কথা বলা।

মনোযোগ রাখার চেষ্টা করুনঃ

ইন্টারভিউয়ের শুরু থেকেই প্রশ্নকর্তা আপনাকে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে বেশ কিছু তথ্য দিতে পারেন। যদি আপনি সেগুলো না শোনেন তাহলে আপনি বড় কোন সুযোগ হারাতে পারেন। ইন্টারভিউ ভালো করার জন্য শোনা এবং যিনি কথা বলছেন তার কথাগুলো যে আপনি শুনছেন সেটি তাকে বোঝানো জরুরি। প্রশ্নকর্তা কিভাবে, কোন স্টাইলে কথা বলছেন তা উপলব্ধি করুন।

আত্মবিশ্বাসের সাথে হ্যান্ডশেক করুনঃ

চাকরির ক্ষেত্রে নিয়োগকর্তারা অনেক সময় হ্যান্ডশেকের ধরন দেখেও অনেক কিছু বিবেচনা করেন। একজন ইতিবাচক, আত্মবিশ্বাসী এবং পেশাদার মানুষ কখনোই কাঁপা কাঁপা নিস্তেজ হাতে হ্যান্ডশেক করবে না আবার হ্যান্ডশেকের সময় খুব বেশি শক্ত করে ও হাত ধরবে না। তাতে মনে হবে আপনি অন্যর উপর জোর খাটাতে ওস্তাদ। দরকার হলে হ্যান্ডশেক অনুশীলন করুন।

বডি ল্যাঙ্গুয়েজের দিকে খেয়াল রাখুনঃ

এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় চাকরির ইন্টারভিউএ এগিয়ে থাকার জন্য। বডি ল্যাঙ্গুয়েজের কথা বলতে গেলে সবার প্রথমে হেসে কথা বলার কথা বলতে হয়। হাসিমুখ হলো একটা বিশ্ব স্বীকৃত ভঙ্গি যা দ্বারা আপনি সহজেই বোঝাতে পারবেন আপনি ইন্টারভিউ দিতে এসে বেশ খুশি। তাই দরজায় প্রবেশ করার সাথে সাথেই মুখে হাসি রাখুন এবং হাসিমুখে প্রতিটি প্রশ্নের জবাব দিন। বডি ল্যাঙ্গুয়েজ এর ক্ষেত্রে আরেকটি বিষয় মনে রাখা প্রয়োজন সেটি হল ইন্টারভিউয়ের সময় কখনো কাত হয়ে বসা যাবে না সব সময় সোজা হয়ে বসতে হবে।

নার্ভাসনেস নিয়ন্ত্রণে রাখুনঃ

আপনি হয়ত সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে গেলেন কিন্তু নার্ভাসনেসের কারণে ইন্টারভিউ বোর্ডে আপনি সব ভুলে গেলেন। যদি আপনার এমন ঘটনা ঘটাবার আশঙ্কা থাকে তাহলে ইন্টারভিউ রুমে ঢোকার আগে জোরে জোরে কয়েকবার শ্বাস নিন। এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন যে, ইন্টারভিউ এর সময় ঘাবড়ে না গিয়ে আপনার প্রস্তুত করা উত্তরগুলো নিয়ে ভাবুন।

উপযুক্ত ভাষায় কথা বলুনঃ

ইন্টারভিউ সময় আপনাকে পেশাগত ভাষায় কথা বলতে হবে। আপনার ভাষা যেন প্রশ্নকর্তা দের বিব্রত না করে। তাহলে তাৎক্ষণিকভাবেই আপনার ইন্টারভিউ শেষ হয়ে যেতে পারে ।

আপনার সম্পর্কে বলুনঃ

ইন্টারভিউ আসলে একটা সুবর্ণ সুযোগ নিজেকে আরেকজনের কাছে তুলে ধরার। এখানে আপনি আরেকজনকে নিজের ব্যাপারে ভালো ধারণা দেবার সুযোগ পাবেন। তাই ইন্টারভিউ দেওয়ার আগে আপনার ব্যক্তিত্ব ও রুচি নিয়ে ভালো করে ভাবুন, ভেবে দেখুন কোন কোন কারণে আপনি অন্যদের চেয়ে আলাদা। আপনি কেন কাজটি করতে চান বা পছন্দ করেন, এ কাজটি পেলে আপনি কতটা উপকৃত হবেন এই বিষয়গুলো বলার চেষ্টা করবেন এতে আপনার সম্পর্কে ইন্টারভিউ বোর্ডের লোকজনের একটা ইতিবাচক মনোভাব গড়ে উঠবে।

ইন্টারভিউয়ের জন্য অনুশীলনের কোন বিকল্প নেই। তবে ইন্টারভিউ এর জন্য আগে থেকে প্রস্তুতি গ্রহণ অনেক বেশি জরুরী সেই সাথে উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলোর দিকে যথেষ্ট লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন। আরো কিছু বিষয় রয়েছে যেমন ইন্টারভিউতে সময়মতো পৌঁছানো জরুরি। কোনভাবেই দেরি করা যাবে না এতে বাজে ইম্প্রেশন তৈরি হবে। যিনি ইন্টারভিউ নিচ্ছেন তার পুরো কথা শুনবেন এবং তিনি যা জানতে চাইছেন কেবল তারই উত্তর দিবেন। আজেবাজে কথা বলে নিজের এবং অন্যর সময় নষ্ট করবে না। আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে কেয়ারফুলি জিজ্ঞাসা করবেন। সবশেষে ইন্টারভিউয়ার দের ধন্যবাদ জানাতে ভুলবেন না।